সাম্প্রতিক পোস্ট

তাফসীর শাস্ত্রের উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ

24 নভেম্বর 2018  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

 

অভিধানিক অর্থ: অভিধানিক  দৃষ্টিকোন থেকে তাফসীর (تفسیر)  শব্দের অর্থ স্পষ্ট করা, প্রকাশ করা, প্রসারিত করা, ব্যাখ্যা করা, যেমন যেমন আল্লাহর বাণী: -وَلَا يَأْتُونَكَ بِمَثَلٍ إِلَّا جِئْنَاكَ بِالْحَقِّ وَأَحْسَنَ تَفْسِيرًا

“ তারা আপনার কাছে কোন সমস্যা উপস্থাপন করলেই আমি তার সঠিক জওয়াব  ও ব্যাখ্যা প্রদান করি।  تفسیر শব্দটি  فسر শব্দমূল হতে গৃহত। যার অর্থ, উদঘাটন করা, উন্মুক্ত করা।স্পষ্ট করা। লিসানুল আরব প্রণেতা বলেন: الفسر  অর্থ, বয়ান তথা স্পষ্ট ব্যাখ্যা, যেমন বলা হয়: فسرہ অর্থাৎ স্পষ্ট করেছে। অতঃপর তিনি বলেন:  الفسر  অর্থ পর্দা উন্মোচন আর তাফসীরের কাজ হলো, অস্পষ্ট শব্দের মূল তত্ত্ব উদঘাটন করা।  মূলত ر - س- ف  ও ر - ف- س এই উভয় শব্দ মূল উন্মুক্তকরণ ও যবনিকা উন্মোচনের অর্থে ব্যবহৃত হয়। কিন্তু ر - ف- س শব্দমূল সাধারণত বাহ্য ও জড় বস্তুর উন্মোচন অর্থে এবং ر - س- ف অভ্যন্তরীণ ও অজড় বস্তুর উন্মোচন অর্থে ব্যবহৃত হয়। ডাক্তার ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


সাহরী খাওয়ার শেষ সময়সীমা:

24 নভেম্বর 2018  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

সাহরী খাওয়ার শেষ সময়সীমা:
........................................
একটি ভ্রান্তি নিরসন
.......................
নিম্নে বর্ণিত হাদীসটির কারণে অনেকের মধ্যে সন্দেহ সৃষ্টি হয় এবং বলতে শোনা যায় যে, ফজরের আযানের পরেও সাহরী খাওয়া অনুমতি রয়েছে হাদীসে এবং দলীল স্বরূপ তারা এ হাদীসটি পেশ করে  থাকেন:
عن أبي هريرة  رضي الله عنه قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم إذا سمع أحدكم النـداء والإناء على يده فلا يضعه حتى يقضي حاجته مـنه ) صحيح أبي داؤد(
অর্থ: হযরত আবু হুরাইরা রা. হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল সা. ইরশাদ করেছেনে যখন তোমরা কেউ আযান শুনবে আর খাদ্যের পাত্র হাতে থাকে, তবে সে যেন তা রেখে না দেয় যে পর্যন্ত সে  তা হতে নিজের প্রয়োজন পূর্ণ না করে। (আবু দাউদ)
উক্ত হাদীসের কারণে অনেকেই মনে করেন, ফজরের আযানের পরেও সাহরী খাওয়া যায়।
আসলে এমন ধারণা করা আর হাতির দাঁতকে কলাগাছ মনে করা সমান। কারণ সাহরীর সময়সীমার বর্ণনা এসেছে সরাসরি কোরআন মাজীদে ইরশাদ হচ্ছে:
وَكُلُوا وَاشرَبُوا حَتَّى يَتَبَيَّنَ ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন