দরছে সুন্নাহ

শবে বারাআত নিয়ে আমাদের চিন্তা-ভাবনা

19 এপ্রিল  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

 

নাম করণ:

شب براءة  (শবে বারাআত) ফার্সী শব্দ, شب যার অর্থ রাত। আর براءة (বারাআত) অর্থ নিষ্কৃতি, দায়মুক্তি। যেহেতু এ রাতে আল্লাহ তাআলা বহুসংখ্যক মানুষকে জাহান্নাম থেকে মুক্তি তথা নিষ্কৃতি দান করেন তাই এ রাতকে شب براءة  বলা হয়। যে সমস্ত বরকতময় রজনীতে আল্লাহ তাআলা তাঁর বান্দাদের প্রতি রহমতের দৃষ্টি দান করে থাকেন, শবে বরাত তাদেরই অন্যতম।এ রাতটি তাফসীর-হাদিস ও ফেক্বাহ শাস্ত্রের কিতাব সমুহে ليلة النصف من شعبان শব্দে বর্ণিত হয়েছে যার অর্থ  শাবানের মধ্য রজনী। মূলত এ রাতটি হলো শাবান মাসের চৌদ্দ তারিখ দিবাগত রাত অর্থাৎ শাবানের পঞ্চদশ রজনী।

এ রাতের আরো কয়েটি নাম:

শাবান মাসের মধ্য রজনী’র চারটি উল্লেখযোগ্য নাম রয়েছে আর তা হলোঃ

১.    ليلة البراءة (মুক্তি বা নিষ্কৃতির রাত)

২. ليلة مباركة  (বরকতময় রজনী )৩. ليلة الرحمة  (দয়া ও রহমতের রাত )৪. ليلة الصك  (দায়মুক্তির রাত) ।

২.    এ রাতকে ‘লাইলাতুস সাক’ নামে নামকরণের কারণ হিসেবে তাফসীরে কাশশাফে বর্ণিত আছে যে- যখন কোন ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


প্রসঙ্গ:ফরজ নামাজ বাদ সম্মিলিত দোয়া-

18 ফেব্রুয়ারি  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

নামাজ,রোজা, হজ্ব ও যাকাত এগুলো যেমন  ইসলামের স্বতন্ত্র একটি এবাদত ঠিক দোয়াও ইসলামের  স্বতন্ত্র একটি এবাদত। তাই দোয়াকে ভিন্ন কোন দৃষ্টিতে দেখার কোন সুযোগ নাই।

দোয়া একটি স্বতন্ত্র  এবাদত:

মুমিনের সব থেকে বড় হাতিয়ার হচ্ছে তার দোয়া। “দোয়া মুমিনের হাতিয়ার”  এটাকে আমরা অনেক সময় হাদীস মনে করে থাকি; প্রকৃত পক্ষে এটি হাদীস নয়, তবে সহীহ হাদীসের অর্থ বাহক। অন্য এক হাদীসে এসেছে: সবর এবং দোয়া মুমিনের কতইনা উত্তম হাতিয়ার।

تخريج السيوطي. فر.  عن ابن عباس . تحقيق الألباني. ضعيف  انظر حديث رقم : ৫৯৭০

দোয়া রবের সাথে সম্পর্ক স্থাপক:

দোয়ার দ্বারা মুমিন তার রবের সাথে যে কোন সময় সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারে। ইরশাদ হচ্ছে:

তোমাদের পালনকর্তা বলেন, তোমরা আমাকে ডাক, আমি সাড়া দেব। যারা আমার এবাদতে অহংকার করে তারা সত্বরই জাহান্নামে  দাখিল হবে লাঞ্ছিত হয়ে। (সূরা-মুমিন; ৬২)

 আল্লামা ইবনে কাসির রহ. কাবে আহবার থেকে বর্ণনা করেন, পূর্ব যুগে কেবল পয়গম্ববরগণকেই বলা হত, দোয়া করুন: আমি কবুল করবো। আর এখন এই আদেশ সকলের জন্য ব্যাপক করে ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


মৃত ব্যক্তির বাড়িতে দাওয়াত খাওয়া প্রসঙ্গেঃ

23 সেপ্টেম্বর  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

মৃত ব্যক্তির বাড়িতে দাওয়াত খাওয়া প্রসঙ্গেঃ

আমাদের সমাজে একটা প্রথা আছে, তা হচ্ছে, কোন ব্যক্তি মারা গেলে তার জানাযায় উপস্থিত লোকদের এ ভাবে দাওয়াত দেয়া হয়যে, অমুক তারিখে মাইয়্যেতের বাড়িতে ইসালে ছাওয়াব ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে, সকলের প্রতি দাওয়াত রইল।

 মৃতব্যক্তির বাড়িতে খানার ব্যাবস্থা করা ও খানা খাওয়া বেদআত, এ ব্যাপারে উম্মতের উলামায়ে কেরাম একমত। বিভিন্ন কারণে এমন অনুষ্ঠান অবৈধ ও হারাম।

(১) এ সমস্ত রছম-রেওয়াজের কোন অস্তিত্ব ইসলামে নেই এগুলো জাহিলিয়াতের যুগে আরবের মুর্খ লোকেরা করে থাকত।

 ইসলাম এসে এ সমস্ত জাহিলী প্রথাকে রহিত করে দিয়েছে।

(২) সাহাবায়ে কেরাম ও সালাফে সালেহীনদের থেকে এমন কোন আমলের প্রমাণ পাওয়া যায় না।

(৩) এটা যারা করে তাদের এটা মনগড়া কাম।

(৪)

عن أبي هريرة رضى الله تعالى عنه أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال إذا مات الإنسان انقطع عمله إلا من ثلاث صدقة جارية وعلم ينتفع به وولد صالح يدعو له . أخرجه مُسلم .

হযরত আবু হুরাইরা রা. থেকে বর্ণিত, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ও সাল্লাম বলেন- ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


এ মূর্খতার শেষ কোথায় !

19 সেপ্টেম্বর  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

এ মূর্খতার শেষ কোথায় ! কথায় আছে“ নিমে তাবীব খাতরায়ে জান আওর নিমে মোল্লা খাতরায়ে ঈমান” অর্থাৎ; অল্প বিদ্যার ডাক্তার ও অল্প বিদ্যার মোল্লা দুজন-ই জাতীর জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ। প্রথম জনের তালে পড়লে রুগী জান হারায় আর দ্বিতীয় জনের তালে পড়লে ঈমানদারের ঈমান নষ্ট হয়ে যায়। আমাদের আশেপাশে এমন মোল্লা ও ডাক্তরের অভাব নাই। আসুন মূল আলোচনার দিকে যাই আমার এক বন্ধু দুদিন আগে আমাকে ফোন করে বললঃ তথাকথিত আহলে হাদীসের একজন আলেম নাকি ফাতাওয়া দিয়েছেন যে, একটি গরু দিয়ে যদি কেউ কুরবানী করতে চায় তাহলে তাকে একা কুরবানী করতে হবে অথবা সাত শরীকে করতে হবে। তিন, চার বা পাঁচ শরীকে নাকি গরু কুরবানী করলে কুরবানী হয়না, কারণ এটা নাকি কোন হাদিসে নাই। আর আহলে-হাদীসগণ তো হাদীস ছাড়া কোন কাজই করেন না। কিন্তু আমরা তো উম্মাতের আমল অনেক আগে থেকেই দেখে আসছি যে, তারা দুই, তিন, চার ও পাঁচ শরীকে কুরবানী করে, তাহলে এতদিন উম্মত যে আমল করেছে ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


প্রিয় নবীজীর প্রিয় আমল।

10 আগস্ট  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

প্রশ্ন: আপনি কি নবজাত শিশুর ন্যায় নিষ্পাপ হতে চান?

উত্তর: নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন: যে ব্যাক্তি এই (কাবা) ঘরে   (হজ্ব বা উমরার জন্য) আসবে, অতঃপর সে স্ত্রী সহবাস করবেনা অথবা এ সংক্রান্ত কোন কথা-বার্তাও বলবেনা, তাহলে সে নবজাতক শিশুর ন্যায় নিষ্পাপ হয়ে ফিরে যাবে। (মুসলিম)

 প্রশ্ন: আপনি কি চান আপনার জীবনের পেছনের সমস্ত গুনাহ মার্জনা হয়ে যাক?

উত্তর: নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন: যদি কোন ব্যাক্তি আমার এ ওজুর মত ওজু করে দুই রাকাত নামাজ এমন ভাবে আদায় করে যে, সে নামাজ ছাড়া মনে মনে অন্য কিছু চিন্তা-ভাবনা করেনা। হাদীসের অন্য বর্ণনায় এসেছে যে, সে নামাজে উদাসীন হয়না, তাহলে তার বিগত জীবনের গুনাহ ক্ষমা করে দেওয়া হবে।(বুখারী ও মুসলিম)

প্রশ্ন: আপনি কি চান পৃথিবীর সমস্ত মানুষের সংখ্যার পরিমাণ সওয়াব কামাই করতে?

উত্তর: নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন: যে ব্যক্তি সকল মুমিন নারী ও পুরুষের গুনাহের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করবে, আল্লাহ পাক তার জন্য প্রত্যেক মুমিন নর ও  নারীর ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন