ইসলামী আকীদা

মঙ্গল শোভাযাত্রায় পহেলা বৈশাখ....

13 এপ্রিল  ট্যাগ:  ভিডিও বয়ান

মঙ্গল শোভাযাত্রায় পহেলা বৈশাখ.... পহেলা বৈশাখের উৎসব বর্তমানে মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে শুরু হয়। পহেলা বৈশাখের এ উৎসব নাকি বর্তমানে জাতীয় ঐতিহ্য ও জাতীয় উৎসবে পরিণত হয়েছে। এটা নাকি বাঙালির চিরায়ত উৎসব। আবার কেউ কেউ এটাকে ধর্মনিরপেক্ষতার খোল পড়িয়ে নাম দিয়েছে ধর্মনিরপেক্ষ উৎসব। পৃথিবীতে নাস্তিক ছাড়া সবাই ধর্মে বিশ্বাসী। সব ধর্মের মানুষের কাছেই নাস্তিকরা দোষী। তাই ধর্ম ছাড়া আবার উৎসব হয় কিভাবে? তাই সবাইকে নিজ নিজ ধর্ম মেনেই উৎসবে মেতে উঠতে হবে। বিধায় ‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার’ কথাটা যেমন ভিত্তিহীন তেমনি ‘ধর্মনিরপেক্ষ উৎসব’ কথাটাও ভিত্তিহীন। এজন্য বর্ষবরণ উৎসবকে ‘ধর্মনিরপেক্ষ উৎসব’ বলার কোন মানেই হয় না।

ধর্মনিরপেক্ষতার সম্পর্কে জানতে লিংকটিতে জান ... https://www.alkawsar.com/bn/article/1064/.

সম্মানিত পাঠকবৃন্দ! যারা এ উৎসবকে জাতীয় উৎসব, এবং জাতীয় ঐতিহ্য বলে, তাদেরকে বলি; আপনারা “জাতি”শব্দের কোন অর্থটা ধরে এটাকে ‘জাতীয় উৎসব ও ঐতিহ্য বলেন? কারণ জাতি শব্দের কয়েকটি অর্থের মধ্যে থেকে দু’টি অর্থ উল্লেখযোগ্য- জাতি;১.ধর্ম অনুযায়ী শ্রেণিবিভাগ যেমন: মুসলিম জাতি, হিন্দু জাতি। জাতি;২. রাষ্ট্র-দেশ বা সংস্কৃতি অনুযায়ী শ্রেণিবিভাগ যেমন: ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


মুসলমান, মুমিন ও মুহসিন!

14 আগস্ট  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

সাধারণভাবে আমরা উল্লিখিত তিনটির মাঝে কোন প্রকার পার্থক্য ছাড়াই  ব্যবহার করে থাকি। উপরন্তু উলামায়ে কেরাম তিনটির মাঝে কিছু পার্থক্যের বর্ণনা দিয়েছেন যা নিম্নে তুলে ধরা হলো।

 মুসলমান: আল্লাহ তাআলার উপর ঈমান ও রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি  ও সাল্লামের রেসালতের উপর বিশ্বাস স্থাপন করতঃ বাহ্যিক আমলসমূহ (যেমন নামজ, রোজা, হজ্ব, যাকাত) যারা করেন তাদের মুসলমান বলা হয়।

মুমিন: উল্লিখিত গুণগুলোর সাথে সাথে আরো কিছু বিষয় যোগ হবে।  যেমন:

(ক) ফেরেশতাদের উপর ঈমান আনা।

(খ) মহান আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে নাযিলকৃত কিতাবসমূহের  প্রতি ঈমান আনা

(গ) মহান আল্লাহ তাআলা মানব জাতির হেদায়েতের জন্য যত নবী-রসূলদের দুনিয়ায় পাঠিয়েছেন তাদের উপর ঈমান আনা।

(ঘ) আখেরাতের উপর ঈমান আনা।

(ঙ) তাকদীরের ভালো-মন্দ মহান আল্লাহ তাআলার পক্ষ হতে হয়, এর উপর ঈমান আনা।

(চ) এবং মরণের পর পুনরুত্থানের(মানুষ মারা যাবার পর কিয়ামতের দিন পুনরায় জীবন লাভ করাকে বুঝায়) উপর ঈমান আনা। সার কথা বাহ্যিক  আমলগত দিকটাকে ইসলাম বলে, আর ভিতরের অর্ন্তরগত বিশ্বাসটাকে ঈমান বলে। তবে এখানে আমাদের একটা মৌলিক কথা স্মরণ রাখা দরকার তা হচ্ছে, ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


রসূল (সা.) নুরের তৈরি না মাটির?

10 আগস্ট  ট্যাগ:  প্রবন্ধ

ইয়াহুদী-নাসারাদের ষড়যন্ত্র ক্রমানন্বয়ে মুসলামানেদের ঈমান আক্বীদার উপর চরম ভাবে আঘাত হানছে। এরা  মুসলমানদের ঈমান-আমল ধ্বংসের পেছনে নিজেদের  অর্থ-সম্পদ ব্যয় করতে কুন্ঠাবোধ করেনা। তাদের এ ষড়যন্ত্রে তারা যে সফল, তার প্রমাণ হচ্ছে তারা ইতিমধ্যে মাজারপূজারী বিদআতীদেরকে নিজেদের বসে নিয়ে এসেছে। যে বাংলাদেশ ৯৫% মানুষ মুসলমান, সেখনে মাজারপূজারী বিদআতীদের দৌরাত্ব দেখে আক্কেল গুড়–ম হয়ে যায়। এরা নবী প্রেম ও ওলীদের প্রতি মহব্বতের নামে মুসলমানদের নির্ভাজাল তাওহীদী আক্বীদার মধ্যে ইয়াহুদী-নাসারাদের মত শিরক প্রবিষ্ট করে দিচ্ছে। এরই একটি উদাহরণ হচ্ছে তারা আমাদের নবীজীকে আল্লাহর সমপর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য নানারূপ শিরকী কথা ব্যাপক প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। “নবীজী হাজির-নাজির, তিনি মাটির মানুষ না বরং আল্লাহর নূরের একটি অংশ” এ ধরণের আরো অনেক গর্হিত কথা তারা মিলাদুন্নবীর মিছিলে মিটিংএ অবলিলা ক্রমে স্লোাগান দিয়ে চলেছে।

 এ ব্যাপারে কোরআন সুস্পষ্ট সমাধান দিয়েছে যে, নবী মাটির তৈরি, তিনি নূরের তৈরি নন। এটাই হচ্ছে খাঁটি আহলে সুন্নত ওয়ালজামাআতের আক্বীদা। কিন্তু মধুর বোতলে বিষ বিক্রি করার মত মাজারপূজারী বিদআতীরা নিজেদেরকে আহলে সুন্নত ওয়ালজামাআতের ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


প্রাচ্যের উপহার

10 আগস্ট  ট্যাগ:  প্রবন্ধ


নশ্বর এ পৃথিবীতে মানুষের যাবতীয় সমস্যার সঠিক সমাধান দিতে পারে একমাত্র ইসলাম। ইসলামে রয়েছে অনুপম আদর্শ-সভ্যতা ও নৈতিকতার সফল শিক্ষা, যা মানুষে যবাতীয় সমস্যা সমাধানের একমাত্র সোপান।
ইসলাম ছাড়া অন্যান্য ধর্মের ধজাধারীরা  মানুষের সমস্যা সমাধানে যতই হাঁক-ডাক মারুক না কেন, প্রকৃত পক্ষে তাদেই শিক্ষা, সভ্যতা-সংস্কৃতি মানুষের চরম শত্রু এবং তারাই মানবতাকে ধ্বংসের অতলগহবরে নিক্ষেপ করেছে। যে সমস্ত সভ্যতা-সংস্কৃতির আঘাতে আজকে মানবতা অধঃপতন ও অবনতির চুড়ান্ত সীমায় উপনীত হয়েছে এবং তা মরণ যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে, এর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হচ্ছে প্রাচ্যের নগ্নসভ্যতা।  
পাশ্চাত্যের সভ্যতায় রয়েছে উচ্ছশৃঙ্খল যৌনচারিতা, নারী পুুরুষের অবাধ মেলামেশা ও যৌবনকে যত্রতত্র ব্যাবহারের সর্বপরি সুযোগ সুবিধা। তাদের শিক্ষা ও নোংরা সভ্যতা, সমকামীতার মত জঘন্য কাজের বিল পাশ করা থেকে তাদের বাধা প্রদান করেনা। তাদের এ অসভ্যতা পশু পকৃতিকেও হার মানায়া। কারন পাসবিক জীবনেও এ কর্ম কখনও কারো  দৃষ্টিগোচর হয়েছেকি না তা আমার জানা নাই  । এদের নগ্নসভ্যতা, মানবতার ভিতকে নড়বড়ে করে দিয়েছে, চুরমাচুর করে দিয়েছে এ বৃক্ষের কমল ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন

 


কুরবানীর গুরুত্ব - তাৎপর্য ও সংক্ষিপ্ত ইতিহাস:

08 আগস্ট  ট্যাগ:  প্রবন্ধ


বিসমিল্লাহ হিররহমানির রহীম                                           
মহান প্রেমের চরম পরাকাষ্ঠা প্রদর্শনের দারপ্রান্তে আমরা উপস্থিত, নিজেদের সবচে প্রিয় বস্তুটি করুনাময়ের উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করার অমিয় শিক্ষা নিয়ে এল পবিত্র কুরবানী। আল্লাহর জন্য কুরবানী করা হযরত আদম আ. এর যামানা থেকেই প্রচলিত।
ঐ সময় মানুষ কুরবানী করে মাঠে রেখে আসত, যার কুরবানী আল্লাহর দরবারে কবূল হত আসমান থেকে আগুন এসে তার কুরবানী করা পশু জ্বালিয়ে দিত।
আল্লাহ তা’আলা তাঁর প্রিয় বান্দাদের থেকে কুরবানী নিতেন। সে ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা হযরত ইবরাহীম আ. কে আদেশ করেছিলেন তাঁর প্রাণাধিক পুত্র ইসমাইলকে কুরবানী করার।
জাতির পিতা হযরত ইবরাহীম আ. কঠোর পরীক্ষার সম্মুখীন হয়েছিলেন, তিনি সে পরীক্ষা শতভাগ উতীর্ণ হয়েছিলেন। মহান আল্লাহ তা’আলা খলীলুল্লাহর সেই অমর প্রেম কাহিনীকে আমলী রূপ দিয়ে আমাদের মাঝে জীবন্ত করে রেখেছেন। খলীলুল্লাহ হযরত ইবরাহীম আ. ইরাকের অধিবাসী ছিলেন। সেখান থেকে হিযরত করে শাম-সিরীয়ায় চলে আসেন, সেখানেই জন্মগ্রহণ করেন তাঁর প্রাণাধিকপুত্র হযরত ঈসমাইল আ.। স্তন্যপায়ী ঈসমাইলকে ...

মন্তব্য: 0  |  বিস্তারিত পড়ুন