সাম্প্রতিক পোস্ট শিরোনাম

সাম্প্রতিক পোস্ট

শবে বারাআত নিয়ে আমাদের চিন্তা-ভাবনা

19 Apr 2019  Tags:  প্রবন্ধ

 

নাম করণ:

شب براءة  (শবে বারাআত) ফার্সী শব্দ, شب যার অর্থ রাত। আর براءة (বারাআত) অর্থ নিষ্কৃতি, দায়মুক্তি। যেহেতু এ রাতে আল্লাহ তাআলা বহুসংখ্যক মানুষকে জাহান্নাম থেকে মুক্তি তথা নিষ্কৃতি দান করেন তাই এ রাতকে شب براءة  বলা হয়। যে সমস্ত বরকতময় রজনীতে আল্লাহ তাআলা তাঁর বান্দাদের প্রতি রহমতের দৃষ্টি দান করে থাকেন, শবে বরাত তাদেরই অন্যতম।এ রাতটি তাফসীর-হাদিস ও ফেক্বাহ শাস্ত্রের কিতাব সমুহে ليلة النصف من شعبان শব্দে বর্ণিত হয়েছে যার অর্থ  শাবানের মধ্য রজনী। মূলত এ রাতটি হলো শাবান মাসের চৌদ্দ তারিখ দিবাগত রাত অর্থাৎ শাবানের পঞ্চদশ রজনী।

এ রাতের আরো কয়েটি নাম:

শাবান মাসের মধ্য রজনী’র চারটি উল্লেখযোগ্য নাম রয়েছে আর তা হলোঃ

১.    ليلة البراءة (মুক্তি বা নিষ্কৃতির রাত)

২. ليلة مباركة  (বরকতময় রজনী )৩. ليلة الرحمة  (দয়া ও রহমতের রাত )৪. ليلة الصك  (দায়মুক্তির রাত) ।

২.    এ রাতকে ‘লাইলাতুস সাক’ নামে নামকরণের কারণ হিসেবে তাফসীরে কাশশাফে বর্ণিত আছে যে- যখন কোন ...

Comments : 0  |  Cotinue reading

 


প্রসঙ্গ:ফরজ নামাজ বাদ সম্মিলিত দোয়া-

18 Feb 2019  Tags:  প্রবন্ধ

নামাজ,রোজা, হজ্ব ও যাকাত এগুলো যেমন  ইসলামের স্বতন্ত্র একটি এবাদত ঠিক দোয়াও ইসলামের  স্বতন্ত্র একটি এবাদত। তাই দোয়াকে ভিন্ন কোন দৃষ্টিতে দেখার কোন সুযোগ নাই।

দোয়া একটি স্বতন্ত্র  এবাদত:

মুমিনের সব থেকে বড় হাতিয়ার হচ্ছে তার দোয়া। “দোয়া মুমিনের হাতিয়ার”  এটাকে আমরা অনেক সময় হাদীস মনে করে থাকি; প্রকৃত পক্ষে এটি হাদীস নয়, তবে সহীহ হাদীসের অর্থ বাহক। অন্য এক হাদীসে এসেছে: সবর এবং দোয়া মুমিনের কতইনা উত্তম হাতিয়ার।

تخريج السيوطي. فر.  عن ابن عباس . تحقيق الألباني. ضعيف  انظر حديث رقم : ৫৯৭০

দোয়া রবের সাথে সম্পর্ক স্থাপক:

দোয়ার দ্বারা মুমিন তার রবের সাথে যে কোন সময় সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারে। ইরশাদ হচ্ছে:

তোমাদের পালনকর্তা বলেন, তোমরা আমাকে ডাক, আমি সাড়া দেব। যারা আমার এবাদতে অহংকার করে তারা সত্বরই জাহান্নামে  দাখিল হবে লাঞ্ছিত হয়ে। (সূরা-মুমিন; ৬২)

 আল্লামা ইবনে কাসির রহ. কাবে আহবার থেকে বর্ণনা করেন, পূর্ব যুগে কেবল পয়গম্ববরগণকেই বলা হত, দোয়া করুন: আমি কবুল করবো। আর এখন এই আদেশ সকলের জন্য ব্যাপক করে ...

Comments : 0  |  Cotinue reading

 


তাফসীর শাস্ত্রের উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ

24 Nov 2018  Tags:  প্রবন্ধ

 

অভিধানিক অর্থ: অভিধানিক  দৃষ্টিকোন থেকে তাফসীর (تفسیر)  শব্দের অর্থ স্পষ্ট করা, প্রকাশ করা, প্রসারিত করা, ব্যাখ্যা করা, যেমন যেমন আল্লাহর বাণী: -وَلَا يَأْتُونَكَ بِمَثَلٍ إِلَّا جِئْنَاكَ بِالْحَقِّ وَأَحْسَنَ تَفْسِيرًا

“ তারা আপনার কাছে কোন সমস্যা উপস্থাপন করলেই আমি তার সঠিক জওয়াব  ও ব্যাখ্যা প্রদান করি।  تفسیر শব্দটি  فسر শব্দমূল হতে গৃহত। যার অর্থ, উদঘাটন করা, উন্মুক্ত করা।স্পষ্ট করা। লিসানুল আরব প্রণেতা বলেন: الفسر  অর্থ, বয়ান তথা স্পষ্ট ব্যাখ্যা, যেমন বলা হয়: فسرہ অর্থাৎ স্পষ্ট করেছে। অতঃপর তিনি বলেন:  الفسر  অর্থ পর্দা উন্মোচন আর তাফসীরের কাজ হলো, অস্পষ্ট শব্দের মূল তত্ত্ব উদঘাটন করা।  মূলত ر - س- ف  ও ر - ف- س এই উভয় শব্দ মূল উন্মুক্তকরণ ও যবনিকা উন্মোচনের অর্থে ব্যবহৃত হয়। কিন্তু ر - ف- س শব্দমূল সাধারণত বাহ্য ও জড় বস্তুর উন্মোচন অর্থে এবং ر - س- ف অভ্যন্তরীণ ও অজড় বস্তুর উন্মোচন অর্থে ব্যবহৃত হয়। ডাক্তার ...

Comments : 0  |  Cotinue reading

 


সাহরী খাওয়ার শেষ সময়সীমা:

24 Nov 2018  Tags:  প্রবন্ধ

সাহরী খাওয়ার শেষ সময়সীমা:
........................................
একটি ভ্রান্তি নিরসন
.......................
নিম্নে বর্ণিত হাদীসটির কারণে অনেকের মধ্যে সন্দেহ সৃষ্টি হয় এবং বলতে শোনা যায় যে, ফজরের আযানের পরেও সাহরী খাওয়া অনুমতি রয়েছে হাদীসে এবং দলীল স্বরূপ তারা এ হাদীসটি পেশ করে  থাকেন:
عن أبي هريرة  رضي الله عنه قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم إذا سمع أحدكم النـداء والإناء على يده فلا يضعه حتى يقضي حاجته مـنه ) صحيح أبي داؤد(
অর্থ: হযরত আবু হুরাইরা রা. হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল সা. ইরশাদ করেছেনে যখন তোমরা কেউ আযান শুনবে আর খাদ্যের পাত্র হাতে থাকে, তবে সে যেন তা রেখে না দেয় যে পর্যন্ত সে  তা হতে নিজের প্রয়োজন পূর্ণ না করে। (আবু দাউদ)
উক্ত হাদীসের কারণে অনেকেই মনে করেন, ফজরের আযানের পরেও সাহরী খাওয়া যায়।
আসলে এমন ধারণা করা আর হাতির দাঁতকে কলাগাছ মনে করা সমান। কারণ সাহরীর সময়সীমার বর্ণনা এসেছে সরাসরি কোরআন মাজীদে ইরশাদ হচ্ছে:
وَكُلُوا وَاشرَبُوا حَتَّى يَتَبَيَّنَ ...

Comments : 0  |  Cotinue reading

 


ল্যাপটপ ব্যবহারের টিপস:

26 Sep 2018  Tags:  প্রবন্ধ

 

কিছু নিয়ম মেনে চললে ল্যাপটপের পারফরমেন্স ভালো হয়।

—ব্যাটারি দিয়ে ল্যাপটপ চালানো না লাগলেও ২/৩ সপ্তাহে মাঝে মাঝে ব্যাটারি থেকে চালাতে হবে, নতুবা ব্যাটারি আয়ু কমে যাবে।

—ব্যাটারিতে ল্যাপটপ চালানোর সময় স্ক্রিনের ব্রাইটনেস কমিয়ে দিন।

—মাঝে মাঝে ব্যাটারির কানেক্টর লাইন পরিষ্কার করুন।

—ভালো মানের এন্টিভাইরাস ব্যবহার করুন।

—দরকারি ছাড়া অন্য উইন্ডোগুলো মিনিমাইজ করে রাখুন।

—হার্ডডিস্ক থেকে মুভি-গান প্লে করুন, কারণ সিডি/ডিভিডি র‌্যাম অনেক বেশি পাওয়ার নেয়।

—এয়ার ভেন্টের পথ খোলা রাখুন, সহজে বাতাস চলাচল করে এমনভাবে ল্যাপটপ পজিশনিং করুন, সরাসরি সূর্যের আলোতে রাখবেন না।

—শাট ডাউনের পরিবর্তে হাইবারনেট অপশন ইউজ করুন।

—ব্লু-টুথ ও ওয়াই-ফাই কানেকশন বন্ধ রাখুন।

—হার্ডডিস্ক ও সিপিইউ-এর মেইনটেন্যান্সে কোনো কাজ করবেন না।

—অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রামগুলো বন্ধ করুন।

—মাঝে মাঝে মেমোরি ক্লিনের জন্য Ram Cleaner, Ram Optimi“er, Mem Monster, Free Up Ram, Super Ram নিয়মমাফিক ডিফ্রাগমেন্ট করুন।

—আপাতত দরকার নেই এমন প্রোগ্রাম আনইনস্টল করুন।

— আমরা সাধারণত যাই ডিলিট করি তাই রিসাইকেল বিনে জমা হয় যা অনেক জায়গা নষ্ট করে তাই রিসাইকেল বিন থেকে অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলো ডিলিট করে ফেলুন।

— ল্যাপটপ ডেস্কটপের মতো একটানা ...

Comments : 0  |  Cotinue reading